সোমবার , ১৫ মে ২০২৩ | ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ নিউজ
  8. কলাম
  9. কৃষি
  10. খুলনা বিভাগ
  11. খেলাধুলা
  12. গণমাধ্যম
  13. চট্টগ্রাম বিভাগ
  14. জাতীয়
  15. ঢাকা বিভাগ

মোখা মোকাবেলায় ছিলো ব্যাপক প্রস্তুতি : প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদক
সভ্যতার আলো ডেস্ক
মে ১৫, ২০২৩ ৫:২৬ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখার আঘাতে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষার জন্য আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিলাম। আমি নিজে সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নিয়েছি, বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়েছি।

সম্প্রতি ত্রিদেশীয় সফর শেষে আজ সোমবার বিকেল ৪টায় প্রধা

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় মোখায় দেশের যেসব এলাকায় বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, দ্রুতই সেগুলো মেরামতের কাজ শুরু হয়ে গেছে। অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখার আঘাতে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে আমরা রক্ষা পেয়েছি।

তিনি বলেন, আমরা উপকূলীয় ১৩টি জেলায় সাত হাজার ৪০টি আশ্রয়কেন্দ্র খুলেছিলাম। কেন্দ্রগুলোতে সাড়ে সাত লাখেরও বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছিল। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় দ্রুত পুনর্বাসন কার্যক্রম গ্রহণের জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়। আর যেসব এলাকা ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, দ্রুতই সেগুলো আবার মেরামতের কাজ শুরু হয়ে গেছে। তা ছাড়া খাবার, পানি যা যা দরকার, সব কিছুরই ব্যবস্থা করা হয়েছে।

নমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

জাপান সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার আমন্ত্রণে আমি ২৫ এপ্রিল জাপানের রাজধানী টোকিও পৌঁছাই। ২৬ এপ্রিল সকালে আমি জাপানের সম্রাট নারুহিতোর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করি। সম্রাট আমাকে স্বাগত জানান এবং দুই দেশের সম্পর্ক আরো গভীরতর হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শেখ হাসিনা জানান, ওই দিন সন্ধ্যায় জাপানের প্রধানমন্ত্রী তাকে গার্ড অব অনার দিয়ে নিজ কার্যালয়ে অভ্যর্থনা জানান। এরপর জাপানের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দুই দেশের সরকারপ্রধানের মধ্যে আনুষ্ঠানিক দ্বিপক্ষীয় শীর্ষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে কৃষিমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও উচ্চ পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্র সফর নিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের অংশীদারত্বের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ডেভিড মালপাসের আমন্ত্রণে আমি ২৮ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে পৌঁছাই। যুক্তরাষ্ট্র সফরের প্রথম দিনে ২৯ এপ্রিল অপরাহ্ণে আমার সঙ্গে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিল ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তিনি অবকাঠামোগত উন্নয়ন, যোগাযোগ স্থাপন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি এবং কভিড-১৯ মহামারিকালেও বাংলাদেশের সামষ্টিক অর্থনীতির স্থিতিশীলতার প্রশংসা করেন।

যুক্তরাজ্য সফর নিয়ে তিনি বলেন, ব্রিটেনের মহামহিম রাজার পক্ষ থেকে তার এবং রানি ক্যামিলার রাজ্যাভিষেক ও অভ্যর্থনায় অংশগ্রহণ এবং কমনওয়েলথ সেক্রেটারি জেনারেলের পক্ষ থেকে কমনওয়েলথ লিডার্স ইভেন্টে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে আমি ৪ থেকে ৮ মে যুক্তরাজ্য সফর করি।

তিনি আরো বলেন, ৫ মে বিকেলে বাকিংহাম প্যালেসে মহামহিম রাজা তৃতীয় চার্লস এবং রানি ক্যামিলার অভ্যর্থনা অনুষ্ঠিত হয়। ৬ মে লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টার অ্যাবিতে রাজা এবং রানির রাজ্যাভিষেক অনুষ্ঠান হয়। আমি অভ্যর্থনা এবং রাজ্যাভিষেক উভয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করি। মার্লবোরো হাউসে অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ লিডার্স ইভেন্টে আমি মহামহিম রাজা তৃতীয় চার্লসের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করি।

এ সময় আমি রাজা ও রানিকে অভিনন্দন জানাই ও তাদের বাংলাদেশে সফরের আমন্ত্রণ জানাই। ৫ মে বিকেলে মার্লবোরো হাউসে কমনওয়েলথ সেক্রেটারি জেনারেল আয়োজিত কমনওয়েলথ লিডার্স ইভেন্টে অংশগ্রহণ করি।

সর্বশেষ - বাংলাদেশ

আপনার জন্য নির্বাচিত